পার্কে দুই কলেজছাত্রীর সামনে মধ্যবয়সীর হ’স্তমৈ’থুন

ভারতের কলকাতার এক পার্কে দুই কলেজছাত্রীর সামনে হ’স্তমৈ’থুন করার অ’ভিযোগ উঠেছে মধ্যবয়সী এক ব্যক্তির বি’রুদ্ধে। উপস্থিত বুদ্ধির জো’রে সেই অ’ভিযুক্তকে পু’লিশের হাতে ধরিয়ে দিয়েছেন ওই দুই কলেজছাত্রী। সূত্র: আনন্দবাজার

সোমবার (৯ ডিসেম্বর) কলকাতার বেহালা থা*নার হিন্দুস্তান পার্ক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ওই দুই কলেজছাত্রীর অ’ভিযোগ, গত চার দিন ধরে শেখ সেলিমউদ্দিন নামের এক ব্যক্তি তাদের অনুসরণ করছিলেন। রোববার এলাকার এক পার্কে গেলে পিছনে পিছনে পৌঁছে যান চল্লিশ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি। ছাত্রীরা জানিয়েছেন, পার্কের গেটের সামনে প্রকাশ্যেই হ’স্তমৈ’থুন করতে থাকেন তিনি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ওই দুই ছাত্রী পাড়ার লোককে বিষয়টি জানান রবিবারই। ঠিক হয়, পরদিন ফের পার্কে যাবেন ওই তরুণীরা। ওই ব্যক্তি ঘটনার পুনরাবৃত্তি করলে, প্রমাণ জোগাড়ের জন্যে ঘটনা ভিডিও করা হবে। সেই কথা মতোই সোমবার আরও এক বান্ধবীকে নিয়ে পার্কে আসেন তারা। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় ওই ব্যক্তিও।

অ’ভিযোগ, টিকট’ক ভিডিও করার ছলে মোবাইল ক্যামেরা অন করলে, ওই ব্যক্তি ক্যামেরাব’ন্দি হয়ে যায় হ’স্তমৈ’থুনরত অবস্থায়। এই সময়েই পাড়ার লোকেরা হাতেনাতে সেই ব্যক্তিকে ধরেও ফেলে । বেহালা থা*নায় খবর দিলে থা*নার পু’লিশ এসে ওই ব্যক্তিকে গ্রে’প্তার করে। পু’লিশের হাতে ভিডিও ফুটেজটি প্রমাণ হিসেব তুলে দেওয়া হয়। ভিডিওটি খতিয়ে দেখছে পু’লিশ।

এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ডিসি দক্ষিণ পশ্চিম নীলাঞ্জন বিশ্বা’সকে বারবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। ফোন সুইচ অফ পাওয়া গিয়েছে বেহালা থা*নার ওসিরও।