চাঁ’দা না পেয়ে বিকাশের দোকানে যুবলীগ নেতার হা’মলা

লক্ষ্মীপুরে চাঁ’দার দাবিতে বিকাশ এজেন্টের দোকানে হা’মলা চালিয়ে ভাঙচুর ও টাকা লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে যুবলীগ নেতা অনুপম হোসেনের বি’রুদ্ধে। অ’ভিযুক্ত অনুপম সদর উপজে’লার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর হোসেন ভুলুর ভাই। সোমবার (০৯ ডিসেম্বর) রাত ৮টার দিকে উপজে’লার পুরাতন তেওয়ারীগঞ্জ বাজারের ইকরা এন্টারপ্রাইজের ওই বিকাশ এজেন্টের দোকানে এ ঘটনা ঘটে। ভু’ক্তভোগী ব্যবসায়ী আবু নোমান খোকন জানান, তিনি স্থানীয় হোসেনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত।

যুবলীগ নেতা অনুপম ওই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য হতে চেয়েছেন। কিন্তু সদস্য হতে না পারায় প্রধান শিক্ষক আবদুল হাইয়ের সঙ্গে বি’রোধে জড়িয়ে পড়েন।

গত ৩ নভেম্বর প্রধান শিক্ষককে মা’রধর করতে অনুপম বিদ্যালয়ে আসেন। শিক্ষক ছুটিতে থাকায় খোকনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন অনুপম। একপর্যায়ে অনুপম তাকে চাকরিচ্যুত করার হু’মকি দেন। কিছুদিন পরই যুবলীগ নেতা তার কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা চাঁ’দা দাবি করেন। টাকা না দিলে তাকে হ’ত্যার হু’মকি দেন। এই ভয়ে কয়েকদিন খোকন পলাতক ছিলেন। সোমবার রাতে চাঁ’দা না দেয়ায় ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনুপম তার অনুসারী জামাল ও দিদারকে নিয়ে এসে খোকনের দোকান ভাঙচুর করেন। এ সময় একটি কম্পিউটার ও বিকাশের প্রায় ৬০ হাজার টাকা নিয়ে যায় তারা।

নোমানের বাবা আবু ছিদ্দিক বলেন, খবর পেয়ে আমি দোকানে আসি। এ সময় অনুপম আমাকে দোকান বন্ধ করতে বলেন। কিন্তু দোকান বন্ধ না করায় আমাকে মা’রধর করতে আসেন তিনি। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে টাকা ও কম্পিউটার নিয়ে চলে যান তারা।

এ ব্যাপারে জানতে যুবলীগ নেতা অনুপম হোসেনের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ত’দন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।